ডা. আকাশ আত্মহত্যার জন্য নিজেই দায়ী-তসলিমা নাসরিন

ডা. আকাশ আত্মহত্যার জন্য  নিজেই দায়ী-তসলিমা নাসরিন Image

সম্প্রতি বাংলাদেশের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক ডা: মোস্তফা মোরশেদ আকাশের আত্মহত্যার ঘটনায় বেশ আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। স্ত্রীর বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পর্ক এবং প্রতারণার অভিযোগ এনে ফেসবুকে পোস্ট করে আত্মহত্যা করেন এই চিকিৎসক।

নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন, ডা: মোস্তফা মোরশেদ আকশের আত্মহত্যার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন । শনিবার তসলিমা তার নিজের ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন। সেখানে তিনি লিখেন, ‘বাংলাদেশে এক ডাক্তার ছেলে আত্মহত্যা করেছে কারণ তার ডাক্তার বউটি অন্য ছেলেদের সংগে প্রেম করতো, শুতো। এতে বড্ড রাগ হয়েছে ছেলের, তাই আত্মহত্যা করেছে। আত্মহত্যা করার মানেই সে তার বউকে খুব ভালোবাসতো, তা প্রমাণ করে না। বউ তাকে ছেড়ে চলে যাবে, ডিভোর্স দেবে, বউয়ের এত বড় স্পর্ধা তার সহ্য হয়নি। আত্মঅহমিকা অনেক সময় এত অতিকায় হয়ে ওঠে, এতে চির ধরলে মানুষ তখন আত্মহননের পথ বেছে নিতে দ্বিধা করে না।’
তসলিমা আরো লেখেন, ‘ডাক্তার ছেলেটির হাত হয়তো নিশপিশ করছিল বউকে আর বউয়ের প্রেমিকদের খুন করতে, কিন্তু দেশ সুদ্ধ লোক জানবে সে খুনি, দেশ সুদ্ধ লোক দেখবে তার ফাঁসি হচ্ছে, বা তাকে জেলের ভাত খেতে হচ্ছে যাবজ্জীবন! এই ব্যাপারটি তার ভালো লাগেনি। খুন করতে না পারার এই অক্ষমতাও মানুষকে আত্মহত্যা করতে প্ররোচনা দেয়। যাকে আমি আমার অধীন রাখতে চেয়েছি, আমার চেয়ে ক্ষুদ্র, আমার চেয়ে তুচ্ছ, আমার চেয়ে মূর্খ না হয়ে যদি সে আমার হাতের মুঠো থেকে বেরিয়ে আমাকেই টেক্কা দেয়, বা আমাকে অবজ্ঞা করে, তাহলে এ জীবন রাখার কোনও মানে নেই।’

আরো পড়ুন:  মিতুর বন্ধুদের বিরুদ্ধে তদন্ত-পরকীয়ার ছবি ভাইরাল

তসলিমা নাসরিন আরো লিখেন, ‘ঈর্ষা ভয়ঙ্কর হয়ে উঠলে কী করে মানুষ? হয় হত্যা নয় আত্মহত্যা। কেউ একজন আত্মহত্যা করেছে, সুতরাং সে খুব সৎ ছিল, সরল ছিল, মহান ছিল– এই ধারণাটি মস্ত ভুল ধারণা। কুখ্যাত খুনি হিটলার আত্মহত্যা করেছিল। বহু খুনি , সন্ত্রাসী, অপরাধীই আত্মহত্যা করেছে। বিশ্বাস না হয়, ইতিহাস ঘেঁটে দেখুন। আজকাল তো ইতিহাস কেউ ঘাঁটে না। সহজ উপায় বলে দিই, গুগল করুন, ‘মারডারারস হু কমিটেড সুইসাইড’, অথবা ‘ক্রিমিনালস হু কমিটেড সুইসাইড’। দেখুন লিস্ট কত লম্বা।’
গত বৃহস্পতিবার ভোরে চট্টগ্রামের চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার বাসায় ইনজেকশনের মাধ্যমে নিজের শরীরে শিরায় বিষ প্রয়োগ করে আত্মহত্যা করেন ডা. আকাশ। এ ঘটনায় আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ এনে আকাশের স্ত্রী মিতু ও শ্বশুর, শাশুড়িসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ইতোমধ্যে মিতুকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।